Tuesday , June 25 2024
Home / Countrywide / ১৩ বছর বয়সী বিশ্বজয়ী হাফেজকে নিয়ে আসিফের সোশ্যাল মিডিয়ায় স্ট্যাটাস

১৩ বছর বয়সী বিশ্বজয়ী হাফেজকে নিয়ে আসিফের সোশ্যাল মিডিয়ায় স্ট্যাটাস

সারা বিশ্বে নানা ধরনের প্রতিভাবান শি’শু রয়েছে। প্রতিটি বাবা মায়েরই ইচ্ছা থকে তাদের সন্তান সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে দেশে ও পিতা মাতার  মুখ উজ্জ্বল করুক। অনেক শি’শুর মধ্যে নানা ধরনের প্রতিভা থাকা সত্যেও তারা তাদের প্রতিভাকে সঠিক স্থানে উপস্থাপন করতে পারে না । তবে এবার বার্থ কোন শি’শু নয়,সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া ১৩ বছর বয়সী এক বাংলাদেশি শি’শু অনেকগুলো দেশের মধ্যে নিজেকে ১ম স্থানে দাড় করিয়ে বাংলাদেশকে নতুন ভাবে রিপ্রেজেন্ট করেছেন বিশ্ববাসীর কাছে ।

আন্তর্জাতিক হিফজুল কুরআন প্রতিযোগিতায় ১৯০ জন প্রতিযোগীকে পেছনে ফেলে বিশ্বে প্রথম হয়েছেন বাংলাদেশের ( Bangladesh ) হাফেজ সালেহ আহমদ ( Saleh Ahmed ) তাকরিম।

১৩ বছরের শি’শুর বিশ্বজয় নিয়ে গর্বিত ও উচ্ছ্বসিত বাংলা গানের রাজপুত্র আসিফ ( Asif ) আকবর।

এই সাফল্যের জন্য আসিফ ( Asif ) তার ফেসবুক পেজে তার ভালোবাসা ও ভালোবাসা শেয়ার করেছেন। হাফেজ সালেহ আহমদ ( Saleh Ahmed ) তাকরিমের একটি ছবি পোস্ট করেছেন।

পছন্দের তালিকায় পোস্ট জমা দিয়েছেন এই গায়িকা।

আসিফ ( Asif ) লিখেছেন,বিশ্ব মঞ্চে এই বাংলাদেশি কিশোর হাফেজের অভাবনীয় সাফল্যে আমাদের গর্বিত হওয়া উচিত। খবরটা শুনে আমি খুব খুশি। আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম সকল ক্ষেত্রে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন হয়ে উঠুক। অনেক অনেক শুভ কামনা। হাফেজ তাকরিমের উত্তরোত্তর সাফল্য কামনা করছি। ভালবাসা অফুরন্ত।

তাকরিমের প্রথম স্থান জয়ের তথ্যও ভক্তদের জানান আসিফ আকবর।

ইরানের তেহরানে অনুষ্ঠিত আন্তর্জাতিক হিফজুল কুরআন প্রতিযোগিতার ৩৮তম আসরে বিশ্বে প্রথম স্থান অধিকার করেছেন বাংলাদেশী প্রতিযোগী হাফেজ সালেহ আহমদ তাকরিম। হাফেজ তাকরিম মিরপুরের মারকাজু ফাযিল কুরআন আল ইসলামী ঢাকার ছাত্র। হাফেজ তাকরিমের বাবা হাফেজ আবদুর রহমান একজন মাদ্রাসা শিক্ষক এবং মা গৃহিণী। তার গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইল জেলার নাগরপুর উপজেলার ভাদ্রায়।

হাফিজ আবদুর রহমান শনিবার এক সংবাদ মাধ্যমকে বলেন, তার বাড়ি সিরাজগঞ্জে। নদীতে বাড়ি-ঘর বিধ্বস্ত হলে আমরা টাঙ্গাইলে ঘরবাড়ি তৈরি করি। তবে তাকরিম আমার সঙ্গে সাভারে থাকত। সেখানে তিনি আমার তত্ত্বাবধানে হাফেজ আছেন। কোরানের আয়াত খুব সহজেই হৃদয়ে গেঁথে যায়। মাত্র সাড়ে ৯ বছর বয়সে তিনি পুরো কোরআন মুখস্ত করেন। পরে তাকে মিরপুরের মারকাজু ফাযিল কুরআন আল ইসলামী মাদ্রাসায় ভর্তি করি। সেখানেও তিনি সফলতার সঙ্গে সব পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হচ্ছেন। ভবিষ্যতে তাকে একজন ধর্মপ্রাণ আলেম হিসেবে গড়ে তুলতে চাই, যাতে সে সঠিকভাবে ইসলামের খেদমত করতে পারে। এখন সে বই বিভাগে পড়ছে।

উল্লেখ্য, হাফেজ সালেহ আহমদ তাকরিমকে বিশ্বর বিভিন্ন দেশগুলো থেকে অভিনন্দন জানিয়েছেন অনেকেই। তার উজ্জল ভবিষ্যতের জন্য দোয়াও করেছেন তারা। বাংলাদেশ থেকে অনেক মানুষ তার এমন প্রতিভায় মুগ্ধ হয়েছেন।

About Nasimul Islam

Check Also

মসজিদের ইমামের কোনো দোষ নেই, জবির সেই আলোচিত ছাত্রী

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) কেন্দ্রীয় মসজিদের ইমাম মো. ছালাহ উদ্দিনকে এক ছাত্রীকে ঘিরে বিতর্কিত ঘটনার জের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *