Monday , June 24 2024
Home / International / গ্যাস বিক্রি নিয়ে বন্ধুত্বহীন দেশগুলোকে নতুন শর্ত দিলেন ভ্লাদিমির পুতিন

গ্যাস বিক্রি নিয়ে বন্ধুত্বহীন দেশগুলোকে নতুন শর্ত দিলেন ভ্লাদিমির পুতিন

সাম্প্রতিক সময়ে রাশিয়া ও ইউক্রেন ( Ukraine ) সংকটে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে প্রয়োজনীয় পণ্যের মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে। এই বিষয় নিয়ে বাংলাদেশের ( Bangladesh ) মানুষ রীতিমত আ/ন্দোলন শুরু করেছে বিগত ( Past ) বেশ কিছুদিন ধরে। এদিকে রাশিয়ার ( Russia ) প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির ( Vladimir ) পুতিন তাদের বন্ধু না এমন কিছু দেশের তালিকা তৈরি করেছেন। এসকল (বন্ধু নয়) দেশগুলোতে গ্যাস বিক্রির জন্য নতুন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি।

বুধবার ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে রুশ প্রেসিডেন্ট এ মন্তব্য করেন।

শর্ত হলো, বন্ধুত্বহীন দেশগুলোকে রাশিয়া থেকে গ্যাস কিনতে রাশিয়ার নিজস্ব মুদ্রা রুবেল দিতে হবে।

এর আগে রাশিয়ান গ্যাস ইউরো বা ডলারে লেনদেন হতো।

গ্যাস বিক্রির বিষয়ে পুতিন বলেন, রাশিয়াকে অবশ্যই আগের সব চুক্তি অনুযায়ী, দাম অনুযায়ী গ্যাস সরবরাহ করতে হবে। তবে যে জিনিসটি পরিবর্তন হবে তা হল মুদ্রা। আপনাকে রাশিয়ান রুবেলে ( rubles ) রাশিয়ান গ্যাস কিনতে হবে।

রাশিয়ার কেন্দ্রীয় ব্যাংক এবং রাষ্ট্রায়ত্ত গ্যাস উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান গ্যাজপ্রমকে এক সপ্তাহ সময় দেওয়া হবে বলেও জানিয়েছেন পুতিন। এই সময়ের মধ্যে কীভাবে করবেন তা সিদ্ধান্ত নিতে হবে তাদের।

রাশিয়া, ইতিমধ্যে, আলবেনিয়া, অ্যান্ডোরা ( Andorra ), অস্ট্রেলিয়া, যুক্তরাজ্য ( United Kingdom ), ইউরোপীয় ইউনিয়ন, আইসল্যান্ড, কানাডা ( Canada ), লিচেনস্টাইন ( Liechtenstein ), মাইক্রোনেশিয়া ( Micronesia ), মোনাকো ( Monaco ), নিউজিল্যান্ড এবং নরওয়ে অন্তর্ভুক্ত করে।

তালিকায় দক্ষিণ কোরিয়া, সান মারিনো ( San Marino ), উত্তর মেসিডোনিয়া ( Northern Macedonia ), সিঙ্গাপুর ( Singapore ), মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ( United States ), তাইওয়ান ( Taiwan ), ইউক্রেন ( Ukraine ), মন্টিনিগ্রো ( Montenegro ), সুইজারল্যান্ড ( Switzerland ) এবং জাপানও ( Japan ) রয়েছে।

ইউরোপের অনেক দেশ রাশিয়ার গ্যাসের ওপর নির্ভরশীল। রাশিয়ার গ্যাস বা জ্বালানির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবে না বলে জানিয়েছে বেশ কয়েকটি দেশ।

উল্লেখ্য, ইউরোপের অনেক দেশ রাশিয়ার ( Russia ) সাথে বন্ধু সুলভ সম্পর্ক না থাকলেও তাদের কাছে পণ্য রপ্তানি বন্ধ করবে না রাশিয়া। রাশিয়ার ( Russia ) রপ্তানিকৃত পণ্য সামঘরী যদি এ সকল দেশে বিক্রয় বন্ধ করে দেয় তাহলে ধারনা করা যায় অর্থনৈতিক দিক দিয়ে ক্ষ/তিগ্রস্থ হতে পারে রাশিয়া । যেমনটা কখনোই চায় না ভ্লাদিমির ( Vladimir ) পুতিন ।

About Nasimul Islam

Check Also

১৮ জুন শুরু হবে তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ

একজন ভারতীয় জ্যোতিষী ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন যে ১৮ জুন তৃতীয় বিশ্বযুদ্ধ শুরু হতে পারে। সোশ্যাল মিডিয়ায় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *