Saturday , June 15 2024
Home / Exclusive / পৃথিবীর সর্বোচ্চ চূড়ায় প্রযুক্তি নিয়ে সুখবর দিলো এনসেল

পৃথিবীর সর্বোচ্চ চূড়ায় প্রযুক্তি নিয়ে সুখবর দিলো এনসেল

এভারেস্ট পর্বত বিশ্বের একটি সর্বোচ্চ পর্বতশৃঙ্গ। এই শৃঙ্গটি হিমালয়ের মহালঙ্গুর হিমাল ( Mahalangur Himal ) পর্বতমালায় অবস্থিত। বহুকাল পূর্ব থেকেই মানুষের রয়েছে এভারেস্ট জয়ের স্বপ্ন। আর এই ইচ্ছার কারনেই টানেই যুগে যুগে মানুষ এভারেষ্টকে জয় করেছে। এভারেস্ট জয় করা যতটা সহজ মনে হচ্ছে ততটা সহজ না। এটা জয় করা খুবই দঃসাধ্য একটা কাজ। সম্প্রতি এক সংবাদ মাধ্যমে জানা গেছে যে, এভারেস্টের সর্ব্বোচ্চ চূড়ায় স্থাপন করা হচ্ছে মুঠোফোন টাওয়ার।

এভারেস্টের বিশাল উঁচুতে নির্মাণ করা হচ্ছে মুঠোফোন টাওয়ার। পর্বতের পাঁচ হাজার মিটারেরও বেশি উচ্চতায় টাওয়ার বসানোর পরিকল্পনা চলছে। নেপালের ( Nepal ) গণমাধ্যমে দাবি করা হচ্ছে, কাজটি শেষ হলে এটি হবে বিশ্বের সবচেয়ে উঁচুতে অবস্থিত মুঠোফোন টাওয়ার। টাওয়ারে চতুর্থ প্রজন্মের ফোরজি দ্রুতগত ( Past )ির নেটওয়ার্ক সংযোগ দেওয়া হবে।

নেপালের ( Nepal ) বেসরকারি খাতের কম্পানি এনসেল ( Ansel ) এই নির্মাণকাজ করছে। তারা সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে তিন হাজার ৮৩০ মিটার উচ্চতা থেকে শুরু করে পাঁচ হাজার ২০৪ মিটার উচ্চতায় কমপক্ষে পাঁচটি বেইস ট্রান্সিভার স্টেশন ( Base transceiver station ) (বিটিএস ( BTS )) নির্মাণ করবে। নেপালের ( Nepal ) প্রদেশ-১-এর সলুখুম্বু ( Salukhumbu ) জেলার খুম্বলু পাসাং লহামু পৌরসভায় এগুলো নির্মাণ করা হবে। এভারেস্টে পর্বতারোহীদের বেইস ক্যাম্পে এরই মধ্যে ফোরজি সেবা রয়েছে। কিন্তু এ জন্য সেখানে কোনো স্থায়ী অবকাঠামো নেই। এনসেল ( Ansel ) জানায়, পরিবেশগত ( Past ) সমীক্ষাসহ অবকাঠামো নির্মাণের সার্বিক কাজ পরিকল্পনামাফিক শেষ হলে এভারেস্টের আট হাজার ৮৪৮ মিটারেরও বেশি উচ্চতা থেকে সংকেত পাওয়া যাবে। শুধু মুঠোফোন সেবাই নয় বরং এ ধরনের টাওয়ার বসলে পর্বতসংশ্লিষ্ট দুর্গম এলাকায় ইন্টারনেট সেবা ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনার কাজে বিদ্যমান সমস্যাগুলো কমে আসবে।

এনসেল ( Ansel ) আরো জানায়, এই কাজের মধ্য দিয়ে এই অঞ্চলের এসব সুবিধা বাড়ার পাশাপাশি দেশটির অর্থনীতির অন্যতম ক্ষেত্র পর্যটনের খাতেও বড় অগ্রগত ( Past )ি হবে। প্রত্যন্ত জনপদগুলো উপকৃত হবে। ইন্টারনেট গত ( Past )িশীল হওয়ার সুবাদে পর্যটকরা তাঁদের ভ্রমণের সময়টি প্রিয়জনদের সঙ্গে ভাগ করে নেওয়ার সুযোগ পাবেন। সব কিছু পরিকল্পনা অনুযায়ী হলে এই বছরের শেষ তিন মাসে কাজ শেষ হবে।

উল্লেখ্য, এভারেস্টে প্রায় সময় তুষার ঝড় হয়ে থাকে যেটা সেখানকার যে কোনো কিছুর জন্য ভয়ের। এরই মধ্যে এভারেস্টের চূড়ায় যে মুঠোফোনের টাওয়ার স্থাপন করা হচ্ছে, সেখানে ফোরজি দ্রুতগত ( Past )ির নেটওয়ার্ক সংযোগ দেওয়া হবে। এরকম একটা দূরুহ জায়গায় টাওয়ার নির্মান করার মতো বিষয়টি অনেক প্রযুক্তি গত ( Past ) বিবেচনার বিষয়। তবে টাওয়ার স্থাপনে সেখানে নেটওয়ার্ক জনিত সমস্যার অনেক উন্নতি হবে বলে আশা করা যাচ্ছে।

About bisso Jit

Check Also

হাত ঘুরে ৩-৪ বার সৌদি আরবে বিক্রি হচ্ছেন বাংলাদেশি নারী শ্রমিক, যারা করছে এই কাজ

সৌদি আরবে তিন-চারবার বিক্রি হচ্ছে বাংলাদেশি নারী শ্রমিক।এজেন্সি থেকে কফিল, কফিল থেকে আবারও স্থানীয় বাসিন্দা। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *