Saturday , June 15 2024
Home / Countrywide / কাঠ দিয়ে নিজে হাতে ট্রেডমিল বানিয়েছেন তেলঙ্গানার এই ব্যক্তি (ভিডিও)

কাঠ দিয়ে নিজে হাতে ট্রেডমিল বানিয়েছেন তেলঙ্গানার এই ব্যক্তি (ভিডিও)

অনেক মানুষ তাদের শরীর সুস্থ রাখার জন্য জিমে যান। সেখানা বিভিন্ন প্রকার ব্যামের মাধ্যমে নিজেকে আকর্ষণীয় ও ফিট রাখার চেষ্টা করেন। অধিক অংশ জিমে ব্যবহারিত এই যন্ত্রাংশের নাম ট্রেডমিলস। অনেক ব্যক্তি জিমে না গিয়ে মোটা অংকের টাকা খরচ করে এই মেশিন বাসায় কিনে নিয়ে আসে। কিন্তু অভিনব ট্রেডমিল বানিয়ে সবাইকে চমকে দিয়েছেন ভারতের তেলেঙ্গানার ( Telangana, India ) এক ব্যক্তি।

এটি একটি ধাতু বা স্বয়ংক্রিয় ট্রেডমিল নয়।তেলেঙ্গানার লোকটি নিজেই কাঠ দিয়ে ট্রেডমিল তৈরি করেছেন। সেই ট্রেডমিলের ভিডিও ইন্টারনেটে ভাইরাল হয়েছে। অভিনব এই ট্রেডমিলের ভিডিও নেটে ছড়িয়ে পড়তেই প্রশংসায় পঞ্চমুখ নেটিজেনরা।

তেলেঙ্গানার তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী কেটি রামারাও ( Katie Ramarao ) ভিডিওটি টু/ইটারে শেয়ার করেছেন। শুধু তাই নয়, তিনি লোকটির অভিনব ট্রেডমিল এবং তার হাতের কাজের প্রশংসাও করেছেন।

ভাইরাল ভিডিওটি মাত্র ৪৫ সেকেন্ডের। এটি দেখায় যে একজন লোক এক জোড়া কাঠের টুকরো দিয়ে একটি ট্রেডমিল তৈরি করছে। ট্রেডমিল তৈরি হলে তা পরীক্ষাও করছেন তিনি। এই ট্রেডমিল চালাতে কোন বিদ্যুতের প্রয়োজন হয় না। ঘাম ভাঙ্গার জন্য আপনাকে এই ট্রেডমিলে ব্যায়াম করতে হবে।অনেকেই বলেছেন, ‘দারুণ আবিষ্কার’।

কেউ আবার বললেন, এই ব্যক্তি প্রমাণ করেছেন যে, ইচ্ছে অভিনব জিনিস তৈরি করা সম্ভব।

অনেকে বলেছেন, “এমন ট্রেডমিল চলবে না।”

ভিডিওটি ভাইরাল হলেও ট ‘ইটে রয়ে গেছে ট্রেডমিলের উদ্ভাবকের নাম। শুধু জানা যায়, তিনি পেশায় একজন কাঠমিস্ত্রি।

উল্লেখ্য, সাম্প্রতিক সময়ে যোগাযোগ মাধ্যমে অনেক প্রশংসা পেয়েছেন এই কাঠমিস্ত্রি। ভারতের তেলেঙ্গানার ( Telangana, India ) তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী কেটি রামারাও ( Katie Ramarao ) এমন আবিষ্কারে মুগ্ধ হয়েছেন এবং নিজের সোশ্যাল আইডিতে শেয়ারও করেছেন। তবে এই মেশিন আবিস্কারকের নাম এখনো প্রর্যন্ত প্রকাশ পায়নি।

 

About Nasimul Islam

Check Also

মসজিদের ইমামের কোনো দোষ নেই, জবির সেই আলোচিত ছাত্রী

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) কেন্দ্রীয় মসজিদের ইমাম মো. ছালাহ উদ্দিনকে এক ছাত্রীকে ঘিরে বিতর্কিত ঘটনার জের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *