Wednesday , April 17 2024
Home / Entertainment / শাবনূরকে নিয়ে এবার কি বললেন মাহি

শাবনূরকে নিয়ে এবার কি বললেন মাহি

ঢাকাই চলচ্চিত্রের অন্যতম জনপ্রিয় একজন অভিনেত্রী মাহিয়া মাহি। অবসর সময়টা ভক্তদের সঙ্গে কাটাতে বেশ পছন্ত করেন তিনি। আর এরই জের ধরে বিভিন্ন সময়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব হতে দেখা যায় তাকে। ফেসবুকে নিজের আপডেট দেন ভক্তদের। তবে অনেক সময় হেয়ালি পোস্ট দিয়েও আলোচনায় আসতে হয়েছে তাকে। যেমনটা সম্প্রতি গত ১৩ সেপ্টেম্বর গুণী এই অভিনেত্রীর দ্বিতীয় বিয়ের খবর ছড়িয়ে পড়তেই বেশ আলোচনায় রয়েছেন তিনি।

 

আর এরই মধ্যে ফেসবুকে মঙ্গলবার এক পোস্টে দিয়ে খবরের শিরোনাম হয়েছেন। হাতের নয় আঙুল তুলে নিজের ক্যারিয়ারের বয়স জানিয়ে দিলেন এ নায়িকা। জানালেন, ঢালিউডে পা রাখার পর ৯ বছর পেরিয়ে গেছে তার। তবে এরই সঙ্গে ঢাকাই ছবির নব্বই দশকের জনপ্রিয় নায়িকা শাবনূরকে ঘিরে এক আফসোসের কথাও জানালেন মাহি।

অকপটেই স্বীকার করলেন, শাবনূরের মতো জনপ্রিয়তা পাননি তিনি। তার মতো ভালোবাসাও পাননি সিনেপ্রেমীদের কাছ থেকে। তবে তিনি চেষ্টা করে যাচ্ছেন সেই পথে।

মাহি বললেন, ‘ভক্তরা আমার সিনেমা দেখতে চান, আমাকে পছন্দ করেন, আমাকে ফেসবুকে অনুসরণ করেন, এটা আমার বড় পাওয়া। চলচ্চিত্রে এসে এমন অনেক কিছু পেয়েছি। এত তাড়াতাড়ি পাব, ভাবিনি। আবার আফসোসও আছে। দেশের একদম সীমান্তে এলাকায় গিয়েও যদি কাউকে বলা যায়, শাবনূরকে চেনেন কি না? সঙ্গে সঙ্গে তারা চিনতে পারবেন। তিনি সেভাবেই দর্শকের কাছে পৌঁছেছেন। দেশের আনাচকানাচে শাবনূর আপাকে দর্শক চেনেন। সেই জায়গায় হয়তো এখনো সেভাবে দর্শকের কাছে পৌঁছাতে পারি নাই। সে রকম একটা জায়গায় গেলে আফসোস কমত। যেতে পারব কি না, জানি না। দেশের সব শ্রেণির দর্শক যেন আমার কাজকে পছন্দ করেন, এখনো সেই চেষ্টা করছি।’

উল্লেখ্য, ২০১২ সালে বাপ্পী চৌধুরীর বিপরীতে ‘ভালোবাসার রঙ’ সিনেমায় অভিনয়ের মধ্য দিয়ে বড় পর্দায় প্রথমবারের পা রাখেন মাহিয়া মাহি। এরপর থেকেই অভিনয়ে নিয়মিত হন তিনি। দীর্ঘ প্রায় একদশকের ক্যারিয়ারে একাধিক জনপ্রিয় সিনেমা উপহার দিয়ে জায়গা করে নিয়েছেন দর্শকের মনে। বর্তমানেও রয়েছেন সাফল্যের চুরা

About

Check Also

নিজেদের গোপন সম্পর্কের কথা ফাঁস করলেন মাহি-জয়

ঢাকাই চলচ্চিত্রের বর্তমান প্রজন্মের নায়িকা মাহিয়া মাহি। বিচ্ছেদের পর সন্তানকে নিয়ে খোস মেজাজে আছেন এই …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *