Saturday , June 15 2024
Home / Entertainment / জেল থেকে ভিডিও কলে মা-বাবার সঙ্গে কথা, গৌরীর করা প্রশ্নে কাঁদলেন আরিয়ান

জেল থেকে ভিডিও কলে মা-বাবার সঙ্গে কথা, গৌরীর করা প্রশ্নে কাঁদলেন আরিয়ান

গত ২ অক্টোবার মা/দ/ক কান্ডে গ্রে/ফ/তা/র হয়েছেন শাহরুখ পুত্র আরিয়ান খান। তরাপর থেকেই তাকে নিয়ে চলছে ব্যপক আলোচনা-সমালোচনা। এমনকি পুত্রের গ্রে/ফ/তা/র কান্ডে শাহরুখ খান নিজেও সমালোচনার শিকার হয়েছেন। বর্তমান সময়ে কা/রা/গা/রে রয়েছে আরিয়ান খান। কারা/গা/রে/র নিয়ম অনুযায়ী মা-বাবার সঙ্গে ভিডিও কলে কথা বলেছেন তিনি। এবং জানালেন কারা/গা/রে কী অবস্থায় আছেন।

মা-বাবার সঙ্গে ১০ মিনিট ভিডিও কলে কথা বলেছেন আরিয়ান খান। কোভিডবিধির জন্য জেলবন্দিরা পরিবারের সঙ্গে সামনাসামনি দেখা করতে পারছেন না। তাই মাসে দুই অথবা তিনবার পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ভিডিও কলে কথা বলার নিয়ম রয়েছে সেখানে।
শাহরুখ খানের বড় ছেলে আরিয়ানও সেই নিয়মেই আবদ্ধ। শুক্রবার শাহরুখ এবং গৌরী ভিডিও কলে ছেলের মুখ দেখতে পেলেন। জানতে চাইলেন, জেলে কী কী ঘটছে, আরিয়ান কী খাবার খাচ্ছে, কোনও সমস্যা হচ্ছে কি না।

আর্থার রোড জেল সূ্ত্রে খবর, মা-বাবার সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে কেঁদে ফেলেন ২৩ বছরের তারকা-সন্তান। বৃহস্পতিবারও জামিন পেলেন না শাহরুখ-পুত্র। জামিন না পাওয়ায় আপাতত তাকে থাকতে হচ্ছে জেল হেফাজতেই। আদালত ঘোষণা করেছে, এই মা/ম/লা/র পরবর্তী শুনানি হবে আগামী বুধবার। জাতীয় মা/দ/ক নিয়ন্ত্রক সংস্থা (এন/সি/বি)-এর যুক্তি, ২৩ বছরের তারকা-সন্তানের হোয়াটসঅ্যাপ বার্তা তদন্ত করে জানা গেছে, তিনি আন্তর্জাতিক মা/দ/ক/চ/ক্রের সঙ্গে যুক্ত এক ব্যক্তির সঙ্গে যোগাযোগ রাখতেন। তার কাছ থেকে নিষিদ্ধ মা/দ/ক সংগ্রহ করতেন। সংস্থার দাবি, যাদের গ্রে/ফ/তা/র করা হয়েছে, তারা একে অপরের সঙ্গে যুক্ত। অপর অভিযুক্ত আরবাজ মার্চেন্টের কাছ থেকে আরিয়ান নাকি প্রায়শই মা/দ/ক কিনতেন।

শাহরুখ খানের এমন দূসময়ে তার পাশে দাঁড়িয়েছে অনেকেই। এমনকি অনেকেই তাকে নানা ভাবে স্বান্তনা প্রদান করছে। শাহরুখ ভক্ত-অনুরাগীরাও তার পাশে রয়েছে বলে জানিয়েছেন। তবে পুত্রের এমন কান্ডে শাহরুখ খান নিজেও বেশ বিপাকে পড়েছেন।

About

Check Also

রাজ-বুবলীর বিয়ে, নেট দুনিয়া তোলপাড়

ঢালিউডের জনপ্রিয় দুই তারকা শরিফুল রাজ ও শবনম বুবলীকে বিয়ে করিয়ে দিয়েছে উইকিপিডিয়া! যেখানে বিশ্বের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *