Monday , April 15 2024
Home / Sports / চার ওভারে কোনো রান না দিয়ে বিশ্বরেকর্ড গড়লেন ভারতীয় ক্রিকেটার

চার ওভারে কোনো রান না দিয়ে বিশ্বরেকর্ড গড়লেন ভারতীয় ক্রিকেটার

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট মানেই প্রতি বলে ব্যাটসম্যানদের রান নেওয়ার চেষ্টা। সেখানে মেডেন দেওয়ার কোনো চিন্তাই তো করা সম্ভব নয় কোনো ক্রিকেটরারে তরফ থেকে, প্রতিবারই মার খাওয়ার ভয়ে থাকেন যিনি বল করেন তিনি। তবে সৈয়দ মুশতাক আলি ট্রফি ম্যাচে গতকাল ইতিহাস বদলে দিয়েছেন বিদর্ভের একজন দূর্দান্ত বোলার। নিজের চার ওভারের কোটায় তিনি দিলেন না একটিও রান আর এটা করার মাধ্যমে তিনি ঢুকে পড়েন রেকর্ডবুকের পাতায়।

গতকাল (সোমবার) মণিপুরের বিরুদ্ধে সৈয়দ মুশতাক আলি ট্রফি ম্যাচে ২৯ বছর বয়সী বিদর্ভ বোলার অক্ষয় কারনেওয়ার টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে বোলিং করার পর ক্রিকেট পরিসংখ্যানের বিশ্ব রেকর্ড ভেঙেছেন। জাদুকরী ৪-৪-০-২ এর পরিসংখ্যান তৈরি করে কার্নেওয়ার। পুরুষদের টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে চার ওভার, চার মেডেন বল করা প্রথম খেলোয়াড় হয়ে পাকিস্তানের পেসার মোহাম্মদ ইরফানের রেকর্ড ভেঙে দিলেন তিনি।

মঙ্গলাগিরি স্টেডিয়ামে বিদর্ভ বনাম মনিপুর ম্যাচে টস জিতে আগে ব্যাটিং করা বিদর্ভ নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে করে ২২২ রান। এরপর দলটির বোলিং ইনিংসের সময় অ্যাম্বিডেক্সটারাস (দুই হাতেই বল করতে পারেন) স্পিনার অক্ষয় কার্নেওয়ার দেখান নিজের স্পিন ভেলকি। গড়েন বিশ্বরেকর্ড।

অক্ষয় নিজের কোটার চার ওভারই সম্পূর্ণ করেন কোনো রান না দিয়ে। চারটিই মেইডেন। এর ওপর আবার উইকেট তুলে নেন দুটি। বোলিং শেষে তার স্পেলটা দেখাচ্ছিল এরকম জাদুকরী ৪-৪-০-২। টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট ইতিহাসে অক্ষয়ই প্রথম বোলার, যিনি চার ওভার বোলিং করে চারটিতেই মেইডেন দিলেন। অবধারিতভাবে, তাতে এক ইনিংসে সবচেয়ে কিপটে বোলিংয়ের রেকর্ডটাও নিজের নামে করে নিয়েছেন তিনি। আগে যেই রেকর্ডটা ছিল পাকিস্তানের বাঁহাতি পেসার মোহাম্মদ ইরফানের।

২০১৮ সালে ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে বারবাডোজের হয়ে এই কীর্তি গড়েছিলেন ইরফান। সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিসের বিপক্ষে চার ওভার বোলিং করে তিন মেইডেনসহ পেয়েছিলেন দুই উইকেট। রান দিয়েছিলেন মাত্র ১! এদিকে গতকাল সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফিতে সবচেয়ে কিপটে বোলিংয়ের আরেকটি রেকর্ড গড়েছেন ভেঙ্কটেশ আইয়ার। মধ্য প্রদেশের হয়ে বিহারের বিপক্ষে চার ওভার বোলিং করে মাত্র ২ রান দেন আইয়ার। চার ওভার বোলিং স্পেলে দুই মেইডেনসহ উইকেট নেন দুটি।

তিনি টানা পাঁচ বল ডট করে জনসন সিংকে মেডেন উইকেটে রূপান্তর করেন। অক্ষয়ের পরের ওভারে চার বলে ছত্রভ’/ঙ্গ হয়ে স্টাম্পড হন জনসন। তার পরের দুই ওভারে একটিও রান না দিয়ে, অক্ষয় টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে কোনো রান ছাড়াই চার ওভার খরচ করে টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে একটি নতুন বিশ্ব রেকর্ড গড়েন। মণিপুর ১৬.৩ ওভারে ৫৫ রানে গুটিয়ে যায়। আদিত্য ঠাকরে (৩.৩-0-১৭-২) এবং অথর্ব তাইডে (১-১-0-২) বিদর্ভের হয়ে দুটি করে উইকেট নেন। সিদ্ধেশ নেরাল (৩-0-১৩-১), অক্ষয় ওয়াখারে (২-0-১০-১) এবং দর্শন নালকান্দে (৩-0-৯-১)ও একটি করে উইকেট নিয়েছেন।

 

About

Check Also

তামিমের দলে ফেরা নিয়ে এবার মুখ খুললেন প্রধান নির্বাচক

বিপিএলের পর জাতীয় দলে ফেরা নিশ্চিত করতে তামিম ইকবালের সঙ্গে আলোচনা করার কথা ছিল বিসিবির। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *