Friday , May 24 2024
Breaking News
Home / Exclusive / ৮০ লক্ষ টাকা পাওয়ার পর ফেরৎ দিয়ে দিলেন কফিল উদ্দিন

৮০ লক্ষ টাকা পাওয়ার পর ফেরৎ দিয়ে দিলেন কফিল উদ্দিন

ফটিকছড়ি উপজেলার গোপালঘাটা নামক গ্রামের মুহুরী বাড়ি হিসেবে পরিচিত ৪০ বছর বয়সী আব্দুল গণি মুহুরীর ছেলে মোহাম্মদ কফিল উদ্দিন মুহুরী যিনি সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাই প্রবাসী তাকে সম্মাননা প্রদান করেছেন দুবাই পুলিশ। তিন লক্ষ ৫০ হাজার রিয়াল তিনি একটি পার্কিংয়ের স্থানে কুড়িয়ে পান যেটা তিনি পরবর্তীতে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করেন এবং এরপর কফিল উদ্দিন মুহুরীকে এই বিরল সম্মাননা দেওয়া হয়।

আবদুল্লাহ খলিফা আল মারি যিনি দুবাই পুলিশের কমান্ডার-ইন-চীফ লেফটেন্যান্ট জেনারেল হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন তিনি এই কাজের সম্মননা দেওয়ার জন্য নির্দেশ দেন। তিনি নির্দেশ প্রদান করার পর আমিরাতের ফ্ল্যাগ ডে’র দিনে দুবাইয়ের নাইফ পুলিশ স্টেশনে কফিল উদ্দিনকে সম্মাননা সনদ ও সৌজন্য উপহার প্রদান করেন। আরব আমিরাতের প্রভাবশালী সংবাদপত্র খালিজ টাইমস, গালফ নিউজসহ আরবি ভাষায় যে সকল পত্রিকা প্রকাশিত হয় সেগুলো ছাড়াও বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকায় এ খবর প্রকাশিত হয়েছে।

কফিলউদ্দিন জানান, ২৯ আগস্ট তিনি দুবাইয়ের দেরাস্থ আল সাবকা স্ট্রিটে (বুড়ি মসজিদ রোড) তার বাসার অদূরে এক বন্ধুর জন্য দুপুরের দিকে অপেক্ষা করছিলেন। এ সময় কালো টেপে মোড়ানো টাকার বান্ডিলটি গাড়ি পার্কিংয়ে পরিত্যক্ত অবস্থায় দেখে কুড়িয়ে নেন এবং কিছুক্ষণ অপেক্ষা করার পরও তার কোনো মালিক না পেয়ে সেটি বাসায় এনে রেখে দেন। রাতে তিনি সেটা খুলে ৫শ’ সৌদি রিয়ালের চকচকে নোটগুলো দেখেন।

এরপরও যে নোটগুলো পাওয়া গেছে সেগুলো আসল কিনা সেটা যাচাই করার জন্য রাতের দিকে তার নুরুল আবসার নামের একজন বন্ধুর সাথে কথা বলেন এবং তার মাধ্যমে মানি এক্সচেঞ্জে চাকরি করছেন এমন এক ব্যক্তির মাধ্যমে নিশ্চিত হয়েছিলেন যে পাওয়া টাকাগুলো আসল কিনা। তিনি যেখানে টাকা পেয়েছিলেন তার পাশে অবস্থিত একটি রেস্টুরেন্টে বলে আসেন যদি কেউ এ টাকার সন্ধান করতে আসেন তাহলে যেন তার সাথে যোগাযোগ করেন। তিনি ৫ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত অপেক্ষা করেন কিন্তু সেই অর্থের মালিকানা কেউ দাবি করেননি যার পর তিনি নাইফ পুলিশ স্টেশনে গিয়ে তা জমা দেন।

About

Check Also

হাত ঘুরে ৩-৪ বার সৌদি আরবে বিক্রি হচ্ছেন বাংলাদেশি নারী শ্রমিক, যারা করছে এই কাজ

সৌদি আরবে তিন-চারবার বিক্রি হচ্ছে বাংলাদেশি নারী শ্রমিক।এজেন্সি থেকে কফিল, কফিল থেকে আবারও স্থানীয় বাসিন্দা। …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *