Monday , June 24 2024
Home / Entertainment / অবশেষে দীর্ঘ দিন পর মালাইকার সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদের কারন জানালেন আরবাজ

অবশেষে দীর্ঘ দিন পর মালাইকার সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদের কারন জানালেন আরবাজ

বলিউডের পরিচিত চেনা মুখ আরবাজ খান ও মালাইকা আরোরা। তারা প্রায় দেড় দশক ধরে সংসার করেছেন। এবং তাদের একটি পুত্র সন্তান রয়েছে। তবে এই দীর্ঘ জীবনের পথ চলা বেশ কিছু কারনে ইতি টেনে তারা দুজনেই বর্তমান সময়ে আলাদা রয়েছেন। সম্প্রতি মালাইকার সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদ নিয়ে বেশ কিছু কথা বললেন আরবাজ খান।

বলিউডের একসময়ের জনপ্রিয় জুটি ছিলেন আরবাজ খান ও মালাইকা আরোরা দম্পতি। দীর্ঘ দেড় যুগ ধরে সংসার করেছিলেন তারা। কিন্তু সেই সংসার জীবন থেকেই একসময়ে বিচ্ছেদের পথে হাটেন তারা। বিচ্ছেদের পর অবশ্য দুজন নতুন করে সম্পর্কে জড়িয়েছেন। দুজনই তাদের নতুন সঙ্গী খুঁজে পেয়েছেন। যদিও ব্যক্তি জীবনে কেউ এখনও আর দ্বিতীয় বিয়েতে আবদ্ধ হননি। এদিকে সম্প্রতি মালাইকার সঙ্গে বিচ্ছেদ নিয়ে এক সাক্ষাৎকারে মুখ খোলেন আরবাজ। তিনি বলেন, ‘আমার ছেলে আরহানের জন্য এটি একটি কঠিন পদক্ষেপ ছিল। যদিও সেই সময়ে মালাইকার ডিভোর্স হওয়া খুব জরুরি ছিল।’ ছেলের জন্য সর্বদা প্রস্তুত রয়েছেন জানিয়ে আরবাজ বলেন, ‘এখন মালাইকা আমার সঙ্গে নেই। কিন্তু আজও আমি আমার ছেলের জন্য সবসময় প্রস্তুত। আরহানের হেফাজত মালাইকার কাছে থাকতে পারে, তবে আমি ওর কাস্টডি পাওয়ার জন্য কখনও লড়াই করিনি। কারণ আমার বিশ্বাস, একজন মায়ের চেয়ে ভালো করে তার সন্তানকে আর কেউ বড় করতে পারে না। এই অবস্থায় আরহানের লালন-পালন নিয়ে কোনও প্রশ্নই তুলেতে পারি না।’ আরবাজ-মালাইকার বিচ্ছেদের সময় তাদের সন্তান আরহানের বয়স ছিল ১২ বছর। আগে থেকেই তিনি বুঝতে পেরেছিলেন, বাবা-মায়ের মধ্যকার সম্পর্কে টানাপোড়েন চলছে। এজন্য বিচ্ছেদের ঘটনা তার কাছে বড় কিছু ছিল না বলে জানান আরবাজ।

উল্লেখ্য, এদিকে আরবাজ খানের সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদের পর বলিউডের তরুণ অভিনেতা অর্জুন কাপুরের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে পড়েন মালাইকা। এবং তারা প্রায় সময় ভক্ত-অনুরাগীদের মাঝে আলোচনা-সমালোচনার সম্মুখীন হয়েছেন। যদিও এখনো তারা বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হয়নি। অপরদিকে ইতালিয়ান মডেল জর্জিয়া অ্যান্ডিয়ানির সঙ্গে আরবাজের সম্পর্ক রয়েছে বলে গুঞ্জন রয়েছে।

About

Check Also

রাজ-বুবলীর বিয়ে, নেট দুনিয়া তোলপাড়

ঢালিউডের জনপ্রিয় দুই তারকা শরিফুল রাজ ও শবনম বুবলীকে বিয়ে করিয়ে দিয়েছে উইকিপিডিয়া! যেখানে বিশ্বের …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *