Saturday, February 4, 2023
বাড়িNational১৭ বছর বয়সে এমবিবিএস পাস করেছেন সেই ডা. সাবরিনা

১৭ বছর বয়সে এমবিবিএস পাস করেছেন সেই ডা. সাবরিনা

Ads

জালিয়াতির কারণে গ্রেফতার হওয়া সেই জেকেজির হেল্থকেয়ারের সাবরিনা আরিফ চৌধুরীকে নিয়ে আবারো উঠেছে নতুন আলোচনা। জানা গেছে মাত্র ১৭ বছর বয়সে এমবিবিএস পাস করা জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালের সাবেক চিকিৎসক ডা. সাবরিনা আরিফ চৌধুরী। সম্প্রতি ড. এনআইডি জালিয়াতির মামলায় সাবরিনার বিরুদ্ধে চার্জশিট দাখিল করেছে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। দাখিলকৃত চার্জশিট থেকে এ তথ্য জানা গেছে।

দাখিল করা চার্জশিটের তথ্য অনুযায়ী ড. সাবরিনার প্রথম জাতীয় পরিচয়পত্রে (এনআইডি) তার জন্ম তারিখ দেওয়া হয়েছে ১৯৭৬। দ্বিতীয় এনআইডিতে দেওয়া জন্মতারিখ ১৯৮৩। ১৯৯১ সালে তিনি ভিকারুননিসা নূন স্কুল থেকে এসএসসি পাস করেন। রাজধানীর কলেজ। ২০০০ সালে স্যার সলিমুল্লাহ (মিটফোর্ড) মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে এমবিবিএস পাস করেন। ১৯৮৩ সালে জন্মগ্রহণ করেন, তিনি আট বছর বয়সে এসএসসি এবং ১৭ বছর বয়সে এমবিবিএস পাস করেন।

অভিযোগপত্রে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উল্লেখ করেন, ১৯৭৬ সালের ২ ডিসেম্বর ড. সাবরিনার সঠিক জন্মতারিখ ২০১৬ সালে তিনি দ্বিতীয় এনআইডিতে তার জন্মতারিখ ১৯৮৩ সালের ২ ডিসেম্বর সম্পূর্ণ মিথ্যা তথ্য দেন। তিনি ১৯৯১ সালে ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে এসএসসি পাস করেন। তিনি ২০০০ সালে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাস করেন। ১৯৮৩ সালে তার জন্ম তারিখ বিবেচনা করে, তিনি আট বছর বয়সে এসএসসি এবং ১৭ বছর বয়সে এমবিবিএস পাস করেন, যা নয়। গ্রহণযোগ্য

সাবরিনা শারমিনের বিরুদ্ধে জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন আইন ২০১০ এর ১৪ ধারা অনুসারে জাতীয় পরিচয়পত্র প্রাপ্তির লক্ষ্যে বিকৃত ও মিথ্যা তথ্য দেওয়া ও ১৫ ধারা অনুসারে একাধিক জাতীয় পরিচয়পত্র নেওয়ার অপরাধ সত্য বলে প্রমাণিত হয়েছে। তিনি বয়স কমিয়ে জালিয়াতির উদ্দেশ্যে দ্বিতীয় টিআইএন নম্বর প্রাপ্ত হয়েছে এবং প্রতারণামূলকভাবে দ্বিতীয় এনআইডি খাটি দলিল হিসেবে তার অফিসে এইচআরআইএস এ ব্যবহার করে পিআরএলের সময় বৃদ্ধি করায় পেনাল কোডের ৪৬৫/৪৬৮/৪৭১ ধারায় অপরাধ করেছে।

প্রসঙ্গত, ২০২০ সালের ৩০শে আগস্ট সাবরিনার বিরুদ্ধে মামলা করেন গুলশান থানা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ মমিন মিয়া ড. এই মামলায় ২০২০ সালের ২২ নভেম্বর জামিন পান সাবরিনা। গত ১৯ জুলাই সাবরিনা চৌধুরী ও তার স্বামী আরিফুল হক চৌধুরীকে পৃথক তিনটি ধারায় ১১ বছরের কারাদণ্ড দেন আদালত জেকেজি হেলথকেয়ারের শীর্ষ কর্মকর্তা ডা. এ মামলায় সাবরিনা সাজাপ্রাপ্ত হয়ে কারাগারে রয়েছেন।

Looks like you have blocked notifications!
Ads
[json_importer]
RELATED ARTICLES

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

Most Popular

Recent Comments