Tuesday, January 31, 2023
বাড়িConutrywideমেয়রের আপত্তিকর ভিডিও দেখেছি, এটি দলের জন্য লজ্জা : আ,লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক

মেয়রের আপত্তিকর ভিডিও দেখেছি, এটি দলের জন্য লজ্জা : আ,লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক

Ads

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকেই নানা নেতিবাচক কর্মকান্ড করে যা পরবর্তীতে তাদের নিজেদের জন্যই কাল হয়ে দাঁড়ায়। এমনি একটি ঘটনা গিয়েছে এবার ফরিদপুরের আলফাডাঙ্গা পৌরসভার মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি সাইফুর রহমান সাইফ। তার বিকৃত চ্যাটিং ভিডিও এখন ফেসবুক ও ইউটিউবে ভাইরাল হয়েছে। এ ঘটনায় স্থানীয় আওয়ামী লীগ বিব্রত। এতে ক্ষুব্ধ এলাকার সাধারণ মানুষ, সুশীল সমাজ।

যদিও , মেয়র সাইফার দাবি করছেন যে ভিডিওটি সুপার-সম্পাদিত এবং তাকে মানুষের কাছে ছোট করার একটি চক্রান্ত। তিনি বলেন, আগামী নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আমাকে সমাজের কাছে আলোকিত করতে একটি মহল এই জঘন্য কাজ করেছে। তিনি বলেন, আমার ধারণা স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর আলী আশরাফ ঝন্টু শত্রুতার জের ধরে এ ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে।

মেয়রের অভিযোগের বিষয়ে আলী আশরাফ ঝন্টু বলেন, এটা ভিত্তিহীন কথা। কেন আমি এটা করব? সামনে নির্বাচন বলে নানা মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে মেয়র আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করার চেষ্টা করছেন।

ভাইরাল হওয়া ভিডিওটিতে দেখা যায়, মেয়র সাইফার ভিডিও চ্যাটিংয়ে তার বিশেষ অঙ্গ প্রদর্শন করছেন একজন নারীকে। ওই নারী তার শরীরের বিশেষ বিশেষ অঙ্গ আবার আওয়ামী লীগ নেতা সাইফারকে প্রদর্শন করছেন।

দুজনেই ইঙ্গিতপূর্ণ শব্দও বলে। হঠাৎ করে এই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে স্থানীয়দের মধ্যে ক্ষোভ ও বিব্রতকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়।

আলফাডাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও আলফাডাঙ্গা সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আহাদুল হাসান বলেন, একজন নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি হিসেবে মেয়রের ভিডিও দেখে হতবাক হয়েছি। এটা আওয়ামী লীগ ও জনগণের জন্য লজ্জাজনক।

আলফাডাঙ্গা উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান শেখ দেলোয়ার হোসেন বলেন, বিষয়টি নিঃসন্দেহে লজ্জাজনক ও বিব্রতকর। এটা যে কোনো জনপ্রতিনিধির জন্য অপমানজনক বলে সুষ্ঠু তদন্ত দাবি করেন তিনি।

ভাইরাল ভিডিও প্রসঙ্গে আলফাডাঙ্গা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এস এম আকরাম হোসেন বলেন, এটা দলের জন্য বিব্রতকর। কিন্তু মেয়েদের সাথে সম্পর্ক থাকাটা অস্বাভাবিক নয়, ভাইরাল হওয়া ঠিক নয়। এ ঘটনায় আমিও লজ্জিত।

ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শাহ মোঃ ইসতিয়াক আরিফ বলেন, এটা দলের জন্য বিব্রতকর, আমরা বিষয়টি খতিয়ে দেখছি। ব্যক্তিগত অপরাধের দায় দল নেবে না।

উল্লেখ্য, বেশকিছু বছর আগে থেকে, মেয়র সাইফার এর অনিয়ম, দুর্নীতি এবং অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ রয়েছে।এ ছাড়া মেয়রের দুই ভাই জাপা ও ওসমান মল্যার বিরুদ্ধেও অনেক অভিযোগ রয়েছে। এমনকি পুলিশকে মারধর ও সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনাও রয়েছে।

Looks like you have blocked notifications!
Ads
[json_importer]
RELATED ARTICLES

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

Most Popular

Recent Comments