Monday, January 30, 2023
বাড়িopinionম্যাডাম তার তাঁর কথা রেখেছিলেন আপনাকে মন্ত্রী রেখে, জাতির সাথে মোনাফেকি করলেন...

ম্যাডাম তার তাঁর কথা রেখেছিলেন আপনাকে মন্ত্রী রেখে, জাতির সাথে মোনাফেকি করলেন উকিল সাহেব :শামসুল

Ads

এবার বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে বিএনপি চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য উকিল আবদুস সাত্তারকে।এই খোর নিয়েই দলটির মধ্যে নানা আলোচনা চলেছে। জানা গিয়েছে দলীয় সিদ্ধান্ত অমান্য এবং শৃঙ্খলা পরিপন্থী কর্মকাণ্ডে লিপ্ত থাকায় এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই প্রসঙ্গে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন লেখক শামসুল আলম। নিচে সেটি তুলে ধরা হল-

উকিলের ভীমরতি!
দু’দিন ধরে মিডিয়া টকে এক মরা উকিল নিয়ে টানাটানি চলছে। বলছিলাম ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসনের বিএনপির পদত্যাগি এমপি উকিল আবদুস সাত্তার সম্পর্কে। তিনি নাকি দলের সিদ্ধান্তে এমপি থেকে পদত্যাগ করার পরে এখন দল থেকে (দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা) পদত্যাগ করে স্বতন্ত্রভাবে উপনির্বাচন করে আওয়ামীলীগের নিশিরাইতের সংসদকে শক্তিশালী করতে চান! আ’লীগও তাদের লেজিটিম্যাসির জন্য তাকে বিনাভোটে জিতিয়ে আনতে পারে।

বেশ! তা উকিল সাব। পা তো একখান কব্বরে, এ অবস্থায় ৫ দশনের রাজনীতি ভুলে জাতির সাথে মোনাফেকি করবার খুব স্বাধ জাগছে তাই না? বাওনবাড়িয়ার মানুষ তো চিনেন ভালই। একবার মাইর শুরু করলে কোনো বাপ আইসা বাঁচাইতে পারবো না।
মনে করায়ে দেই, ২০০১ সালের নির্বাচনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ আসন ইসলামি ঐক্যজোটের মাওলানা ফজলুল হক আমিনীকে দেয়ার পরে সরকার গঠন করে ম্যাডাম আপনাকে প্রতিমন্ত্রী বানিয়ে আইন, মৎস্য, ভূমি, জ্বালানী মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বও দিয়েছিলেন। মোট চারটা মন্ত্রণালয় কাকে দেয়- যে কোনোটায় পারফর্মেন্স দেখাতে পারে না। ম্যাডাম কিন্তু ঈমানদারীর সাথে তাঁর কথা রেখেছিলেন আপনাকে পূর্ণ মেয়াদে মন্ত্রী রেখে। অবশ্য একটা মজার ঘটনা ছিল- ঐ সময় আমার এক অফিসার আপনাকে আবিষ্কার করেছিল ভুমিতে অফিসকক্ষেই এক ছাত্রনেত্রীর জামার ভিতর! এটা নিয়ে আমি কোনো উচ্চবাচ্য করিনি তখন।

যাক সেকথা, এই যে আপনার এখন শারীরিক দশা হইল কেউ আপনার চেহারা দেখতে পায় না, কেনো? বেশি অসুস্থ নাকি? শেষে ১ তারিখ আসার আগে টেনশনে আবার জয়বাংলা হইয়া যাবেন না তো? সংসদের আপনার কেনো পারফর্মেন্স কেউ কখনও দেখেনি। না ল’মেকার হিসাবে, না মন্ত্রী হিসাবে- কাজেই প্রমান হইল অপাত্রে কিছু দান করতে নাই।

‘১৮ সালের নিশিভোটের পরে দলীয় সিদ্ধান্ত ছিল শপথ না নেয়ার, কিন্তু আপনি বাগড়া দিলেন। না, শপথ পড়বেনই। কারণ, আপনার পোলাারে নাকি ডিজিএফআই তুলে নিয়ে গেছে, তার জীবন বাঁচাতে হলে শপথ পড়তে হবে। আমরা বুঝতেই পারছিলাম, ওটা ছিল আপনার নাটক। আসলে ঘাউড়া মাছে গু খাওয়ার মত লোভে পড়ে গিয়েছিলেন। যাই হোক, সেই পোলাই যে এবারে মরার আগে নিমকহারাম বানাতে চায় তা স্পষ্ট।

কিন্তু মনে রাখবেন, ঐ গু খাওয়া উপ-নির্বাচনের আগেই অবৈধ রেজিম শেষ হওয়ার কথা। সেদিন আপনাকে ধাওয়া করলে কে বাঁচাতে আসবে যাদু?

Looks like you have blocked notifications!
Ads
[json_importer]
RELATED ARTICLES

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

Most Popular

Recent Comments