Tuesday, January 31, 2023
বাড়িopinionসেদিন এক গৃহবধূ শেখ হাসিনাকে মুখের উপর বলে দিয়েছিল, অসুস্থ সরকার চাই...

সেদিন এক গৃহবধূ শেখ হাসিনাকে মুখের উপর বলে দিয়েছিল, অসুস্থ সরকার চাই না : শামসুল

Ads

বিএনপির সমাবেশে দেখা গেছে পরিবহন বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে এবং নানা প্রতিবন্ধকতা তৈরী হয়েছে তবে এই বিষয়গুলো সরকার ঘটিয়েছে বলে বিএনপির অভিযোড় থাকলেও সরকার তা মানতে নারাজ তারা বলছেন বাস মালিকরা নিজেদের সুরক্ষার জন্যই এই পরিবহন বন্ধের ঘটনা ঘটিয়েছে ,এই প্রসঙ্গে স্ট্যাটাস দিয়েছেন লেখক বিশ্লেষক সামসুল আলম। নিচে সেটি তুলে ধরা হল

কেনো যেনো হঠাৎ মনে পড়ে গেলো গীতা রানীর সেই ডায়লগ- বিনাভোটের প্রধানমন্ত্রীর মুখের উপর বলে দিয়েছিল, “আমরা অসুস্থ সরকার চাই না!” মোলায়েম ভাষায় ‘অসুস্থ’ শব্দ দিয়ে অনেক কিছু বুঝিয়েছিলেন গীতা। তার কথা মনে করে আজও মুখ টিপে হাসি ছাড়া আর কোনো উপায় কি আছে?
ঘটনাটা কি ছিল?

২৮ নভেম্বর ২০১৩: বিএনপির অবরোধর মধ্যে ডিএমপি কন্ট্রোল রুমের সামনে বিহঙ্গ পরিবহনের একটি গাড়িতে পে’ট্রো’ল ঢেলে আ’গু’ন দিয়ে ১৯ জন মানুষ না ফেরার দেশে পাঠিয়েছিল সন্ত্রাসীরা। ঐ বাসের মালিক ছিল আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবক লীগের সেক্রেটারী পংকজ দেবনাথ। তখন অনেকেই ধারণা করেছিল, পংকজ বাবু নিজেই সিস্টেম করে বাসটি জ্বা’লি’য়ে’ছিল।

এমন ধারণার কারণ কি? প্রথমত, অবরোধ বিএনপি ডাকলেও শাহবাগে যেখানে বাস পো’ড়া’নো হয়েছে, ঐ জায়গাটা বিএনপির জন্য নিরাপদ জোন নয়। ওটা পুলিশ কন্ট্রোল রুমের একদম সামনে। অনেক ক্যামেরা আছে ওখানে। তাই বিএনপির কোনো এক্টিভিস্ট ওখানে বা’স পো’ড়া’তে যাবে না।

তাহলে বাকী রইল হয় পুলিশ পুড়িয়েছে (অনেক জায়গায় তা করেছে বলে ডিএমপি কমিশনার আসাদ ফাঁস করেছিলেন), অথবা বাস মালিক পংকজ নিজে করেছে। এর আগে দেখা গেছে, বিরোধী দলে হরতাল অবরোধের মধ্যে নিজের বিহঙ্গ গাড়ি চালিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছ থেকে কোটি কোটি টাকার ক্ষতিপূরণ তুলেছে পংকজ। তার মানে গাড়ি পো’ড়া’নো এবং ক্ষতিপূরণ নেয়ার একটা কঠিন ব্যারাম পংকজের রয়েছে।

ফেরা যাক ২৮ নভেম্বর ২০১৩ তারিখের বাস পো’ড়া’নো’র ঘটনায়। খবরে প্রকাশ, প্রেসক্লাবের সামনে থেকে দুই-তিন জন যুবক বাসে উঠে। তাদের হাতে প্লাষ্টিকের বোতল ও একটি পুঁটলা ছিল। বাসটি শিশুপার্কের সামনে আসামাত্র বিকট একটি শব্দে গেটের কাছে বি’স্ফো’র’ণ’ ঘটে। কেউ বলেন, এক যুবক বাসের মধ্যে তখন পে’ট্রো’ল ঢে’লে ক’ক’টে’ল বি’স্ফো’র’ণ ঘটায়। এতেই আ’গু”ন ধরে যায়। পুলিশ কন্ট্রোল রুমের সামনে সর্বক্ষণ পুলিশ পাহারা থাকলেও একজন দুস্কুতকারীও ধরতে পারে পুলিশ। কি তাজ্জবের ব্যাপার!

এরপর ২ ডিসেম্বর ২০১৩, রোগি দেখার নামে নাটক করতে গেলে অগ্নিদগ্ধ গৃহবধূ গীতা সরকার শেখ হাসিনাকে মুখের উপর বলে দিয়েছিল, “আমরা অসুস্থ সরকার চাই না!” তার মানে, অসুস্থ সরকারের কায়-কারবারের কথা গীতা সরকারও জানতো।

ঘটনার ৪ বছর পরে এই গাড়ি পো’ড়া’নো’র খবর ফাঁস করে দেন আওয়ামী লীগ থেকে দু’বার নির্বাচিত এমপি, বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ আওয়ামী লীগের সভাপতি, বরিশাল জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মইদুল ইসলাম। তিনি ২০১৭ সালের মে মাসে সাংবাদিক সম্মেলন করে জানান দেন, ”২০১৪ সালের ৫ই জানুয়ারির নির্বাচনের আগে যখন আন্দোলন চলছিল, তখন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাধারণ সম্পাদক পঙ্কজ দেবনাথ তার নিজস্ব বিহঙ্গ পরিবহনে পে’ট্র’ল ঢে’লে আ’গু”ন লাগান। এতে ১১ জন যাত্রী মারা যায়। এ ঘটনার পর তিনি দলের নেত্রীর সহানুভূতি অর্জনে সক্ষম হন এবং মনোনয়ন লাভ করেন।”

অবশেষে ২০২২ সালের ১২ সেপ্টেম্বর পংকজ দেবনাথকে দল থেকে বহিস্কার করে। অর্থাৎ আওয়ামীলীগের সকল পদ পদবী থেকে অব্যাহতি দিয়েছে। যদিও বিষয়টার সাথে প্রতিবেশিদের সাথে টানোপোড়েন সহ অনেক বিষয় জড়িত, তবুও পংকজ বাবুর অতীত অপকর্ম হিসাবের বাইরে যায়নি।

এখন কি বুঝা গেল. কেনো সেদিন গীতা রানী উষ্মা প্রকাশ করেছিল ‘অসুস্থ সরকারে’র প্রতি? এই অসুস্থ সরকারের যাতনায় নাগরিকরা সুস্থ থাকতে পারছে না। তিনি একবার সর্প হইয়া একদিকে দংশন করেন, অন্যদিকে ওঝা হয়ে আবার ঝাড়তে আসেন।

এতকাল পরে চারিদিকে যখন বিদায়ী কুচকাওয়াজ চলছে, তখন হঠাৎ আবার সেই পুরানা কাসুন্দি ঘাটতে নেমে পড়েছেন, ”আগুণ সন্ত্রাসীদের” হাতে দগ্ধ মানুষদের নিয়ে অনুষ্ঠান করে crocodile cry মানে কুম্ভীরাশ্রু বের করছেন, তখর তো গীতা রাণীর কথা মনে পড়বেই।

পড়বে ডিএমপি কমিশনার আসাদুজ্জামানের সেই গর্বিত স্বীকারোক্তি, “সরকার টিকায়া রাখছে পুলিশ/ তেরো সালে আন্দোলন দমাইছে পুলিশ/ চৌদ্দ সালে ইলেকশনও করাইছে পুলিশ/ গত তিন মাসে আগুন ধরাইছে পুলিশ!” আরও মনে পড়বে চৌদ্দগ্রামে আইকন পরিবহনের ওপর পে”ট্র/ল বো””’মা হা’ম’লা’র পরপরই প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইটি ইমামের কথা, গা’ন’পা’উ’ডা’র দিয়ে পো’ড়া’নো হয়, অথচ তখনও কোনো তদন্তই হয়নি।

অন্যদিকে আগুণ লাগার আগেই লীগ কেমনে জানলো, আগে থেকেই ব্যানার লিখে মিছিল করার জন্য লোকজন নিয়ে হাজির! তো অসুস্থ সরকারের এইসব কান্ডকীর্তির পরে আবার মায়াকান্না করে কি করে? তার আগে পংকজ, আসাদ, নানক আজম সহ চিহ্নিত বাস পো’ড়া’নো’র অপরাধীদেরকে বিচারের মুখোমুখি করতে পারতো।
নাকি?

Looks like you have blocked notifications!
Ads
[json_importer]
RELATED ARTICLES

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

Most Popular

Recent Comments