Monday, January 30, 2023
বাড়িopinionউঁচুতলার ব্যক্তিরা তার ভ্রমর, পুলিশের এক প্রাক্তন এসপি সপ্তাহে তিন চারদিন সুবাহ'র...

উঁচুতলার ব্যক্তিরা তার ভ্রমর, পুলিশের এক প্রাক্তন এসপি সপ্তাহে তিন চারদিন সুবাহ’র ফ্ল্যাটে যান : মিলি

Ads

বাংলাদেশের সিনেমাতে বর্তমান সময়ে অনেক নবাগত নায়িকা এসেছেন এবং তাদের মধ্যে অনেকেই ভাল কাজ করছে এবং কাজের মাধ্যমে এসেছেন আলোচনায় তবে অনেকেই আবার আছেন যারা শুরু থেকেই সমালোচিত হয়ে আছেন তাদের মধ্যে অন্যতম একজন হলেন অভিনেত্রী সুবাহ। সুবাহকে নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন প্রবাসী লেখক মিলি সুলতানা। নিচে সেটি পাঠকদের জন্য তুলে ধরা হল –

হুমায়রা সুবাহ বসন্ত বিকেলের নায়িকা হওয়ার আগে নিজেকে ইনভেস্ট করেছেন। এসব বিষয়ে যথেষ্ট উদার সুবাহ। গুঞ্জন আছে রফিক শিকদারের মনোরঞ্জন করে বসন্ত বিকেলের নায়িকা হয়েছেন তিনি। বনানীর যে বাসায় সুবাহ থাকেন তার মাসিক ভাড়া সত্তর হাজার টাকা। বহু চেষ্টা করে নিজেকে ইনভেস্ট করে নায়িকা হয়েছেন, তাও একটি মাত্র ছবির নায়িকা। তার সোর্স অফ ইনকাম কি সবাই জানেন। সবকিছু হ্যান্ডেল করেন তার মা। সমাজের উঁচুতলার ব্যক্তিরা তার ভ্রমর। দ্বিতীয় স্বামী জিকু সুবাহর জন্য ক্লায়েন্ট জোগাড় করে আনতো। ২০১৭ সালে মাদকসহ গ্রেফতার হয় জিকু। যথারীতি নিষিদ্ধ ব্যবসা চালিয়ে যান সুবাহ। লিখন নামের এক যুবক তার সহযোগী হয়ে উঠে।

 

একদিন বিকৃতকামী সুবাহ একই রুমে লিখন ও তার দুই বন্ধুর সাথে নোংরা মেলামেশা করেন। চালাকি করে তিনপুরুষ সুবাহ’র সাথে তাদের বিকৃত মেলামেশার ভিডিওচিত্র ধারণ করে রাখে। ক্লায়েন্ট ও লেনদেন নিয়ে তাদের সাথে বিরোধ হলে তারা সুবাহকে গোপনে ধারণকৃত ভিডিও দিয়ে ব্ল্যাকমেইল করার ভয় দেখায়। একসময় জিকু জেলখানা থেকে বেরিয়ে আসে। মা মেয়ে মিলে তিনবন্ধুর বিরুদ্ধে ধ;র্ষ’ণে’র মিথ্যা মামলা দায়ের করেন। জিকু চ্যাপ্টার ক্লোজ হবার পর সুবাহ গাইবান্ধা থেকে ঢাকায় চলে আসেন। এবার সুস্মিতার (সুবাহ) জীবনে আসেন ক্রিকেটার নাসির হোসেন।

 

মূলত নাসিরের পরিচিতিকে কাজে লাগিয়ে সিনেমার নায়িকা হতে চেয়েছিলেন লোভী ধূর্ত সুবাহ। মুলত তার চরিত্রের নমুনা ও নিজের আসন্ন বিপদ অনুমান করে নাসির আগেই সটকে পড়েন। নাসিরকে আটকাতে না পেরে ছলচাতুরীতে এক্সপার্ট সুবাহ সোশাল মিডিয়ায় লাইভে এসে কান্নাকাটি করে মানুষের সিমপ্যাথি পাবার চেষ্টা করেন। এরপর তার জীবনে ভ্রমণের আনাগোনাও বেড়ে যায়। গায়ক ইলিয়াসের জীবনে অভিশাপ হয়ে আসেন। মা মেয়ের কীর্তি জানতে পেরে ইলিয়াস সরে যাওয়ার চিন্তাভাবনা করলে সুবাহ তার বিরুদ্ধে যৌতুক ও নারী নির্যাতন মামলা ঠুকে দেন। শেষে ২০ লাখ টাকা দিয়ে আপোষ করে সুবাহর জঙ্গল থেকে মুক্তি পান ইলিয়াস। সুবাহ’র বর্তমান ক্লায়েন্টের তালিকায় কিছু নামজাদা ব্যক্তি আছেন।

পুলিশের এক প্রাক্তন এসপি আছেন। তিনি সপ্তাহে তিন চারদিন সুবাহ’র ফ্ল্যাটে যাতায়াত করেন। তার ক্লায়েন্ট তালিকায় আরও আছেন নারায়ণগঞ্জের বিএনপির এক প্রভাবশালী নেতা। শাহীন কবির নামে আমেরিকা প্রবাসী এক ব্যবসায়ী আছেন। আমেরিকায় বসে তিনি সুবাহ’র জন্য ভ্রমরের যোগান দেন। প্রতিমাসে সুবাহ’র ব্যাংক অ্যাকাউন্টে মোটা অংকের টাকা জমা হয়। সুবাহ’র এক সাবেক ক্লায়েন্ট যিনি ডিবি পুলিশের (সিটি সাইবার) কর্মকর্তা। নারীঘটিত অনৈতিক কর্মকান্ড টের পায় ডিপার্টমেন্ট। পরে তাকে সাইবার থেকে সরিয়ে মিরপুর দাঙ্গা পুলিশে ট্রান্সফার করা হয়।

Looks like you have blocked notifications!
Ads
[json_importer]
RELATED ARTICLES

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

Most Popular

Recent Comments