Monday, January 30, 2023
বাড়িConutrywideআ.লীগের এমপি মন্ত্রী আমরা বানিয়েছি, দলের কথা বললে পিটনী খাবেন : যুবলীগ...

আ.লীগের এমপি মন্ত্রী আমরা বানিয়েছি, দলের কথা বললে পিটনী খাবেন : যুবলীগ নেতাকে এসআই

Ads

এবার এক মেয়েকে অপহরণের ঘটনা নিয়ে ডালপালা মেলেছে এসআই এবং যুবলীগ নেতার কথোপকোথন এর অডিও নিয়ে এখন চলছে নানা আলোচনা সমালোচনা। এসআই ওই নেতাকে বলেন এমপিকে মন্ত্রী বানিয়েছি। আপনি কত বড় নেতা হয়ে গেছেন। দলের কথা বললে পিটনি খাবেন । সময় হলে সব বুঝবেন ।’ এভাবেই যুবলীগ নেতাকে শাসালেন মোস্তাফিজুর রহমান নামে এক উপ-পরিদর্শক (এসআই)। মোস্তাফিজুর রহমান লালমনিরহাট সদর থানায় কর্মরত। তিনি পাশবর্তী জেলার কুড়িগ্রামের বাসিন্দা।

যুবলীগ নেতার সঙ্গে মুঠোফোনে আলাপকালে তদন্ত কর্মকর্তা এসআই মোস্তাফিজুর রহমান বলেন,“যে দল করেন তার এমপি মন্ত্রী আমরা বানিয়েছি। এবার হইয়েন? কত বড় নেতা হইছেন এবার হইয়েন। দলের কথা বললে পিটনী খাবেন”।এসব কথা বলে শাসন করেছেন বলে অভিযোগ করেন ওই যুবলীগ নেতা। তাদের কথোপকথনের একটি অডিও সংরক্ষিত আছে।

জানা যায়, গত জুন মাসে লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার পলাশী ইউনিয়ন যুবলীগ সম্পাদক নুরবক্ত মিয়ার এক আত্মীয়ের হাতে এক কিশোরী (মেয়ে) অপহরণ হয়। গত ২৬ জুন লালমনিরহাট সদর থানায় ওই কিশোরীর পরিবার মামলা দায়ের করে। মামলার তদন্তের দায়িত্ব দেওয়া হয় পুলিশের এসআই মোস্তাফিজাকে। তদন্তের একপর্যায়ে ওই কিশোর ও অভিযুক্ত যুবকের খোঁজে ঢাকার খিলগাও থানা এলাকায় অভিযান চালান তদন্ত কর্মকর্তা। সেখানে অপহৃত তরুণীকে উদ্ধার করে অভিযুক্ত যুবককে গ্রেফতার করা হয়। বাসে করে আনার সময় পথে রংপুরে যাত্রা বিরতি নেয়। পরে তদন্তকারী কর্মকর্তা মেয়েটিকে বাস থেকে নামিয়ে একাই নিয়ে যান। মেয়েটির অভিযোগ, রাজি না হলে ক্ষিপ্ত হয়ে মেয়েটির যৌনাঙ্গে মরিচের গুঁড়া দেওয়ার হুমকি দেয়।

এসআই মোস্তাফিজুর রহমান ঢাকায় আসা-যাওয়ার খরচ বাবদ ২০ হাজার টাকা দাবি করেন বলেও জানা গেছে। টাকা না দিলে মেয়েটিকে যশোর সংশোধনাগারে পাঠানোর হুমকি দেন। একপর্যায়ে দরিদ্র অভিভাবকরা মেয়েটিকে ফিরিয়ে আনার জন্য তদন্তকারী কর্মকর্তাকে ১০ হাজার টাকা দেন এবং পরে উদ্ধার হওয়া অপহরণকারীকে আদালতে পাঠানো হয়। টাকা দিতে দেরি হওয়ায় মেয়েটিকে থানার একটি কক্ষে আটকে রেখে পরিবারের এক সদস্যের কাছ থেকে লুকিয়ে রাখা হয়।

আরও জানা যায়, লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার পলাশী ইউনিয়ন যুবলীগ সম্পাদক নুরবক্ত মিয়ার এক মেয়েকে অপহরণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় মেয়েটির পরিবার গত ২৬ জুন লালমনিরহাট সদর থানায় অপহরণের মামলা দায়ের করেন। এ মামলার তদন্তের দায়িত্বে রয়েছেন সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোস্তাফিজুর রহমান।

অপহৃত কিশোরী জানান, রংপুরে ফেরার পথে এসআই আমাকে বাস থেকে নামিয়ে একা নিয়ে যায় এবং থানায় ঢুকে আমার যৌনাঙ্গে মরিচের গুঁড়া লাগানোর হুমকি দেয়। তার ভাষাও খুবই জঘন্য। এসব কথা বলে তারা আমাকে আমার মামলায় জড়াতে চেয়েছে।

যুবলীগ নেতা নূর বখত বলেন, টাকার জন্য মেয়েটিকে আমাদের সঙ্গে দেখা করতে দেওয়া হয়নি। যশোরে পাঠানোর হুমকি দিয়েছে । দলের পরিচয় দিতে গিয়ে তিনি রেগে গিয়ে দল নিয়ে বাজে মন্তব্য করেন। আওয়ামী লীগকে নিয়ে বাজে মন্তব্য করায় এই পুলিশ কর্মকর্তার শাস্তি দাবি করেন তিনি।

তবে সদর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোস্তাফিজুর রহমানের সঙ্গে সঙ্গে আলাপকালে তদন্ত কর্মকর্তা বলেন, এ ঘটনার সঙ্গে আমি জড়িত নই।

এদিকে লালমনিরহাট এ পুলিশের উপ-পরিদর্শক এবং যুবলীগের নেতার বিষয় নিয়ে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি তদন্ত) মোজাম্মেল হক জানান, মামলা সংক্রান্ত কাজে তিনি কর্মস্থলের বাইরে গেলে তার খরচ সরকার বহন করে। বাদী বা কোনো পক্ষের কাছে নেওয়ার সুযোগ নেই। কারো কাছ থেকে জোর করে টাকা নেওয়ার অভিযোগ থাকলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Looks like you have blocked notifications!
Ads
[json_importer]
RELATED ARTICLES

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

Most Popular

Recent Comments