Saturday, February 4, 2023
বাড়িNationalপ্রধানমন্ত্রীকে কেন সামান্য একজন প্রতিমন্ত্রী স্বাগত জানালেন,পেছনের সত্যিটা জানালো ভারতের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা

প্রধানমন্ত্রীকে কেন সামান্য একজন প্রতিমন্ত্রী স্বাগত জানালেন,পেছনের সত্যিটা জানালো ভারতের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা

Ads

চারদিনের রাষ্ট্রীয় সফরে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এখন অবস্থান করছেন ভারতে। তবে তিনি ভারতের মাটিতে পা রাখার পর থেকেই একটি বিষয় নিয়ে হয়েছে সর্বোচ্চ সমালোচনা। আর তা হলো প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চার দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে গত সোমবার নয়াদিল্লিতে পৌঁছালে তাকে অভ্যর্থনা জানান ভারতের রেল ও বস্ত্র প্রতিমন্ত্রী দর্শনা বিক্রম। কিন্তু কেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীকে ভারতের একজন প্রতিমন্ত্রী স্বাগত জানালেন।এ নিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে চলছে তুমুল আলোচনা-সমালোচনা।

এ প্রসঙ্গে ভারতের প্রটোকল বিভাগের একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে প্রটোকল অনুযায়ী সর্বোচ্চ সম্মাননা দেওয়া হয়েছে।

সাউথ ব্লকের প্রটোকল বিভাগের কর্মকর্তা বলেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর অভ্যর্থনায় কোনো ত্রুটি ছিল বা প্রধানমন্ত্রী মোদি নিজে গিয়ে অতিথিকে অসম্মান করেছেন এমনটা নয়।

তিনি আরও মনে করিয়ে দেন যে ২০১৯ সালের অক্টোবরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারত সফরে গেলে নরেন্দ্র মোদি বিমানবন্দরে যাননি।

যাইহোক, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যখন ২০১৭ সালের এপ্রিলে ভারত সফর করেন, তখন তৎকালীন কেন্দ্রীয় নগর উন্নয়ন প্রতিমন্ত্রী এবং সঙ্গীতজ্ঞ বাবুল সুপ্রিয়কে বিমানবন্দরে তাকে স্বাগত জানানোর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু সে সময় নরেন্দ্র মোদি প্রটোকল ভেঙে শেখ হাসিনাকে স্বাগত জানাতে বিমানবন্দরে হাজির হন।

ভারতীয় কর্মকর্তা বলেন, নরেন্দ্র মোদির আমলে শেখ হাসিনার এটিই প্রথম দিল্লি সফর। তাই ভারতের প্রধানমন্ত্রী প্রটোকল ভেঙ্গে বিমানবন্দরে এসেছিলেন বলেই ছিল ভিন্ন ব্যঞ্জনা।

কিন্তু ২০১৯ সালের অক্টোবরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারত সফরে গেলে দিল্লি বিমানবন্দরে তাকে স্বাগত জানান কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী দেবশ্রী চৌধুরী। এ সময় ভারতের প্রধানমন্ত্রী বিমানবন্দরে আসেননি।

উল্লেখ্য, নরেন্দ্র মোদির আমন্ত্রণে চার দিনের রাষ্ট্রীয় সফরে নয়াদিল্লি গেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রীকে বহনকারী বিমানটি সোমবার (৫ সেপ্টেম্বর) দুপুর ১২টায় (বাংলাদেশ সময়) নয়াদিল্লির পালাম বিমানবন্দরে পৌঁছায়।

সেখানে শেখ হাসিনাকে অভ্যর্থনা জানান ভারতের রেল ও বস্ত্র প্রতিমন্ত্রী দর্শনা বিক্রম এবং ভারতে বাংলাদেশের হাইকমিশনার মুহাম্মদ ইমরান।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সম্মানে বিমানবন্দরে লাল গালিচা সংবর্ধনা দেওয়া হয়। এ সময় ছয় থেকে সাত সদস্যের একটি সাংস্কৃতিক দল স্বাগত নৃত্য পরিবেশন করে এবং বাদ্যযন্ত্র বাজানো হয়।

এ সফরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ভারতের রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী ও উপরাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাৎ এবং বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা করার কথা রয়েছে।

এ দিকে এই সফরের বাকি রয়েছে আর মাত্র একদিন। জানা গেছে সব কিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী কালই দেশের উদ্দেশ্যে রওনা হবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

Looks like you have blocked notifications!
Ads
[json_importer]
RELATED ARTICLES

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে

Most Popular

Recent Comments